Image by Anas Miah

নও মুবাইয়াত
(নতুন বয়াতকারিনী)

সাংগঠনিক দায়িত্ব

১১১। নও মুবাইয়াত  লাজনা ও নসেরাতদের বিভিন্ন তথ্যাবলীর রেকর্ড সংরক্ষন করা সেক্রেটারি নও মোবায়েঈনাত এর দায়িত্ব এবং তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ দেয়া এবং ধর্মের জন্য আর্থিক ত্যাগ স্বীকারে শামিল করাও তার দায়িত্বের অন্তর্ভুক্ত।

২০২১-২০২২ সালে নও মোবাইয়াত দপ্তরের দিক নির্দেশনাঃ

স্থানীয় মজলিসের সারা বছরের কাজ সুষ্ঠ ও সুন্দর ভাবে পরিচালনার জন্য কেন্দ্র থেকে কিছু নির্দেশনা প্রদান করা হলো। আশা করি, নির্দেশনা অনুসারে কাজ করলে সময় ও অর্থের সাশ্রয় হবে এবং ফলপ্রসূ ও হবে, ইনশাল্লাহ।

১। প্রথম বছরের ২ টি লেভেল ভাগ করা হয়েছে।

২। প্রত্যেক লেভেল প্রথম ৬ মাস পড়ানোর পর পরীক্ষা নিয়ে রিপোর্ট বা ফলাফল কেন্দ্রে প্রেরণ করবেন।

৩। প্রতি মাসে নও মোবাঈন দের একটি ক্লাসের ব্যবস্থা করবেন। ক্লাসের উপস্থিতির সংখা কেন্দ্রে জানাবেন।

৪। বছরে ১ বার নও মোবাঈনদের নিয়ে একটি সেমিনারের আয়োজন করুন। 

৫। জামা’তের প্রত্যেক দপ্তরের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যেন নও মোবাঈন উপস্থিতি থাকেন সেটা লক্ষ্য রাখবেন। 

৬। তিন মাস পর পর নও মোবাঈন দের নিয়ে যে কার্যক্রম করা হয়েছে তা চিঠির মাধ্যমে কেন্দ্রে প্রেরণ করবেন।

৭। যাদের ৩ বছর অতিক্রম হয়ে যাবে তাদের নাম কেন্দ্রে জানিয়ে দিবেন।

প্রতিবছরের মতো এ বছর ও সিলেবাস তিনটি ভাগে সাজানো হয়েছে।

কর্মশালা ২১-২২

১। যে সকল স্থানীয় জামাতে নও মুবাইয়াত সদস্য রয়েছেন তাদের প্রথমেই তাজনীদভুক্ত করুন। যাদের বয়াতের সাল তিন বছর অতিক্রম হয়েছে এবং নিয়মিত জামাতের সাথে যোগাযোগ রেখেছেন, চাঁদা প্রদানেও অংশগ্রহণ করেছেন এবং নেজামের  সাথে সম্পৃক্ত আছেন উনাদের নাম নও মউবাইয়াত থেকে বাদ দিয়ে দিবেন। সেই ক্ষেত্রে তাজনীদে নও মুবাইয়াত সংখ্যা কমে আসবে।

২। নেজামের প্রতিটা কাজে নও মুবাইয়াদের দাওয়াত পৌঁছাবেন।

৩। তালিম, তরবিয়ত, তবলীগ নও মুবাইয়াত সেক্রেটারি নও মুবাইয়াদের নিগরান করবেন, এদের নিজস্ব দপ্তরের কাজে নও মউবাইয়াদের উপস্থিতি নিশ্চিত করবেন। এতে নতুনদের তালিম ও তরবিয়তের উন্নতি হবে, ইনশাআল্লাহ্।

৪। নতুন আহমদীদের বয়স, যোগ্যতা, চাহিদা অনুযায়ী বন্ধুত্ব তৈরি করুন।

৫। প্রত্যেক মাসে ২/১ টি ক্লাসের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

৬। বছরে একটা সেমিনারের আয়োজন করবেন।

৭। শতবার্ষিকী  টার্গেট ১০০ ভাগ নও মুবাইয়াদের সাথে যোগাযোগ স্থাপনে আপনারা সাহায্যের হাত বাড়াবেন, ইনশাআল্লাহ্।

সিলেবাস

নও মোবাইয়াত দপ্তরটি হযরত মির্জা তাহের আহমেদ খলিফাতুল মসীহ রাবে (রাহে:) ১৯৯৩ সালে গঠন করেন। নতুন বয়াতকৃত আহমদী এর সদস্য/ সদস্যদের নও মোবাইয়াত বলা হয়। বয়াতকৃত হওয়ার পর প্রথম ৩ বছর নও মোবাইয়া হিসেবে গণ্য করা হয়।